অসময়ে ইলিশের ছড়াছড়ি বরিশালে!

 

 

অসময়ে বরিশালের নদ-নদীতে ধরা পড়ছে প্রচুর ইলিশ। তাও আবার বড় বড় সাইজের। এতে খুশি ক্রেতা-বিক্রেতা সবাই। তবে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ থাকায় এবং সংরক্ষণের উপযুক্ত ব্যবস্থা না থাকায় ইলিশ নিয়ে বিপাকে পড়েছেন আড়তদাররা। এদিকে সরবরাহ বেশি হওয়ায় স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে ইলিশ পাঠাচ্ছেন বরিশালের বেপারিরা। মৎস্য কর্মকর্তারা বলছেন, ইলিশের দুটি মৌসুমের মধ্যে অতি আহরণের কারণে একটি মৌসুম হারিয়ে গিয়েছিল। তবে সরকারের নানা উদ্যোগের কারণে অভ্যন্তরীণ নদ-নদীতে ইলিশের উৎপাদন বেড়ে যাওয়ায় আবার ফিরে এসেছে হারিয়ে যাওয়া মৌসুম। এ কারণে বেড়েছে ইলিশের সরবরাহ। কমেছে দামও। বিগত বছরগুলোতে এই সময়ে অনেকটা ইলিশ শূন্য ছিল বরিশালের পোর্ট রোডের ইলিশ মোকাম। স্থানীয় নদ-নদীর কিছু ইলিশ পাওয়া গেলেও দাম ছিল আকাশচুম্বি। কিন্তু গত কয়েক দিন ধরে সেই পুরনো চিত্র পাল্টে গেছে। অসময়ে নদ-নদীতে ধরা পড়ছে প্রচুর পরিমাণ ইলিশ।

 

সাইজেও বেশ বড়। ইলিশ ব্যবসায়ী লালু সিকদার বলেন, শীত মৌসুমে ইলিশের তেমন চাহিদা থাকে না। এ কারণে ভরা মৌসুমের চেয়েও এখন ইলিশের দাম কম। তবে নদ-নদীতে এ সময়ে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ায় খুশি তারা।

বরিশালের মোকামে গত বুধবার ১ হাজার ২০০ গ্রাম সাইজের প্রতি কেজি ইলিশ বিক্রি হয়েছে ৯০০ টাকা দরে, কেজি সাইজের প্রতি কেজি ৮০০ টাকা, রপ্তানিযোগ্য প্রতি কেজি এলসি সাইজের ইলিশ ৬৫০ টাকা এবং ৫০০ থেকে সাড়ে ৫০০ গ্রাম সাইজের প্রতি কেজি ইলিশ বিক্রি হয়েছে ৫০০ থেকে সাড়ে ৫০০ টাকা কেজি দরে। গতকাল সরবরাহ কিছুটা কম থাকায় প্রতি কেজিতে ৫০ টাকা দরে দাম বেড়ে যায়।

      Probashi Barta Corporation (PBC24 - USA)