প্রবাসী বার্তা

Probashi Barta Corporation (USA)

মিশরের ওয়ার্ল্ড ইয়ুথ ফোরামে বাংলাদেশের পতাকা তুলে ধরেছেন তাহমিনা

কায়সার হামিদ হান্নান , মালয়েশিয়া: মিসরের শহর শারম এল শেখ-এ তৃতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ‘ওয়ার্ল্ড ইয়ুথ ফোরাম-২০১৯’। ৩৫ হাজার আবেদনকারীর মধ্য থেকে শেষ ১৬-তে জায়গা করে এবার অংশগ্রহণ করেছেন বাংলাদেশি মিনা। তার পুরো নাম তাহমিনা ভূঁইয়া মিনা। মালয়েশিয়ায় অধ্যয়নরত এ বাংলাদেশি তরুণীর মাধ্যমে এই প্রথম কোনো বাংলাদেশি অংশগ্রহণ করল এ আয়োজনে। ২০১৯-এর ১৩ ডিসেম্বরে মিসরের রেড সি রিসোর্ট শহর শারম এল শেখ-এ রাষ্ট্রপতি আবদেল ফাত্তাহ এল সিসির পৃষ্ঠপোষকতায় এর উদ্বোধন হয়। মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ, ল্যাটিন আমেরিকা এবং এশিয়াজুড়ে ১৬টি দেশ থেকে প্রতিভা বাছাই করে মিসর সরকারের আমন্ত্রণে প্রায় ২৫ দিনের জন্য তাদের নিয়ে আসা হয় এ অনুষ্ঠানটির জন্য। এ অনুষ্ঠানে বিশ্বের ৮০টিরও অধিক দেশ থেকে পাঁচ হাজারের বেশি মানুষ অংশগ্রহণ করেছেন। সেই সঙ্গে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধান, আন্তর্জাতিক তরুণ নেতা, বিভিন্ন ক্ষেত্রে তরুণদের অনুপ্রেরণা জাগানো ব্যক্তিত্ব ও বিশিষ্ট আন্তর্জাতিক ব্যক্তিত্বরাও উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশি তরুণী তাহমিনা ভূঁইয়া আরও ১৫টি ভিন্ন জাতীয়তার সঙ্গে বাংলাদেশের হয়ে বাংলা ভাষায় প্রতিনিধিত্ব করেন।

প্রদর্শিত বিভিন্ন কৃতকর্মের মধ্যে সংগীত, কৌতুক, চিত্রকলা এবং নৃত্য অন্তর্ভুক্ত ছিল। সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের এই সাহসী এবং বর্ণাঢ্য প্রকাশগুলি যে কেবলই যুবসমাজের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে অনুপ্রাণিত করেছিল তা নয়, তারা দেখিয়েছিলেন যে শিল্প কীভাবে বিভিন্ন সংস্কৃতির মধ্যকার সেতু হয়ে উঠতে পারে।

প্রথম দিনের পারফরম্যান্সে বহুভাষিক, আন্তর্জাতিক পুরস্কারপ্রাপ্ত মিশরীয় গায়ক রুলা জাকির একটি কনসার্ট অন্তর্ভুক্ত ছিল। আলবেনিয়ান শিল্পী ফাতমির মুরা, ২০০৯ সালের আলবেনিয়ান টিভি প্রতিভা অনুষ্ঠানের বিজয়ী, তাঁর বালি শিল্পের মাধ্যমে শ্রোতাদের চমকে দিয়েছিলেন, সাথে মিষ্টি গানের সুর এবং তালের অপূর্ব সমন্বয় ঘটেছিল।

মারিসা হামামোটো এবং পিয়োটার ইভানিকিও বিশ্ব যুব থিয়েটারের মঞ্চে একটি বিস্ময়কর-হুইলচেয়ার নৃত্য পরিবেশন করেছিলেন। প্রতিভাবান নৃত্যশিল্পীরা একটি উল্লেখযোগ্য অনুষ্ঠান করার জন্য পোল্যান্ড এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে শারম এল শেখের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেছিলেন। তদুপরি, দ্য হোরাস ট্রাইও কাঠওয়াইন্ড, আউড এবং পার্কসনে মনোরম প্রদর্শনের ব্যবস্থা করেছিলেন।

ওয়ার্ল্ড ইয়ুথ ফোরামের পুরো অনুষ্ঠানটি ১৩ থেকে ১৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত উদযাপিত হয়। এই ২০১৯ ওয়ার্ল্ড ইয়ুথ ফোরাম খাদ্য সুরক্ষা, পরিবেশগত চ্যালেঞ্জ, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা এবং ব্লকচেইন প্রযুক্তি থেকে শুরু করে নারীর ক্ষমতায়ন, চারুকলা এবং সিনেমা এবং আরও অনেক আলাদা বিষয়ই উপস্থাপন করেছে।

মিনা বর্তমানে মালয়েশিয়ার সেগি বিশ্ববিদ্যালয়ের শেষ বর্ষের ছাত্রী। বর্তমানে জাতিসংঘের টেকনোলজি ইনোভেশন ল্যাবে কাজ করছেন। সাংস্কৃতিক অঙ্গনে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিদের কাছে খুবই আলোচিত তিনি।

Posts Grid

সর্বশেষ বার্তা